নাস্তিক্যবাদের বিভ্রান্তির জবাব

কোরআন-হাদিসের কোথাও কী খৎনা করতে বলা হয়েছে ? এ অভিযোগের জবাব :-  জবাব:- জাতির পিতা ইব্রাহিম আঃ এর সময় থেকে খৎনা করার প্রথা চলে আসছে। নবী ইব্রাহিম আঃ সর্বপ্রথম সুন্নতে খৎনা করেন।   وَإِذِ ابْتَلَىٰ إِبْرَاهِيمَ رَبُّهُ بِكَلِمَاتٍ فَأَتَمَّهُنَّ ۖ قَالَ إِنِّي جَاعِلُكَ لِلنَّاسِ إِمَامًا ۖ قَالَ وَمِنْ ذُرِّيَّتِي ۖ قَالَ لَا يَنَالُ عَهْدِي الظَّالِمِينَ যখন ইব্রাহীমকে তাঁর পালনকর্তা কয়েকটি বিষয়ে পরীক্ষা করলেন, অতঃপর তিনি তা পূর্ণ করে দিলেন, তখন পালনকর্তা বললেন, আমি তোমাকে মানবজাতির নেতা করব।....
10 Min read
Read more
মুসলিমরা কী কাবা-ঘরের কালো পাথর বা হাজরে আসওয়াদের ইবাদত করে?   জবাব :- না! কখনোই না। আমরা মুসলিমরা কখনোই কালো পাথরের পূজা করি না।  আমরা কেবল আল্লাহর ইবাদত করি। তিনি আমাদের প্রভু৷  কাবা-ঘর আমাদের কিবলা। আমরা এই দিকে ফিরে সালাত আদায় করি। কাবা না থাকলে আমরা মুসলিমরা একেকজন-একেক দিকে ফিরে সালাত আদায় করতাম। কিন্তু কাবা ঘর থাকার কারণে আমরা সব মুসলিমরা যে-যেই প্রান্তেই থাকি না কেন! আমরা কাবা-ঘরের দিকে ফিরে সালাত আদায় করি। কারণ কাবা আমাদের কিবলা।  মুসলিমরা কাবা-ঘরের ইবাদত করে না প্রমাণ -  فَلْيَعْبُدُوا....
4 Min read
Read more
ইসলামে জোরপূর্বক ব্যভিচারকে ধর্ষণ বলা হয়। ব্যভিচার বা ধর্ষন খুবই নিকৃষ্ট একটি কাজ। ব্যভিচার ও ধর্ষণ এর শাস্তি নিয়ে অনেক হাদিস রয়েছে। আমি এ সম্পর্কে ৩৪২টির ও অধিক হাদিস খুঁজে পেয়েছি । হয়তো আরো আছে। সব হাদিস এখানে উল্লেখ করা সম্ভব না। ইসলামে ধর্ষনের শাস্তি (রজম) পাথর ছুড়ে মৃত্যুদন্ড। তবে বিবাহিত ও অবিবাহিতদের ক্ষেত্রে ভিন্ন শাস্তি।  কোআনের এ বিষয়ে বলা হয়েছে :- আর ব্যভিচারের কাছেও যেয়ো না। নিশ্চয় এটা অশ্লীল কাজ এবং মন্দ পথ। (সূরাঃ বনী ইসরাঈল, আয়াতঃ ৩২) ব্যভিচারী পুরুষ কেবল ব্যভিচারিণী নারী অথবা ম....
12 Min read
Read more
আজ-কাল নাস্তিকদের কারণে সাধারণ মুসলিমরাও বিভ্রান্ত হয়ে প্রশ্ন করে আল্লাহ কেন আমাদের সাথে কথা বলেন না ? তিনি কেন লুকিয়ে আছেন(নাওযুবিল্লাহ)।  জবাব :-  এ প্রশ্নের উত্তর সয়ং আল্লাহ তায়ালা নিজেই কুরআনে দিয়েছেন। وَمَا كَانَ لِبَشَرٍ أَنْ يُكَلِّمَهُ اللَّهُ إِلَّا وَحْيًا أَوْ مِنْ وَرَاءِ حِجَابٍ أَوْ يُرْسِلَ رَسُولًا فَيُوحِيَ بِإِذْنِهِ مَا يَشَاءُ ۚ إِنَّهُ عَلِيٌّ حَكِيمٌ কোন মানুষের জন্য এমন হওয়ার নয় যে, আল্লাহ তার সাথে কথা বলবেন। কিন্তু ওহীর মাধ্যমে অথবা পর্দার অন্তরাল থেকে অথবা তিনি কোন দূ....
6 Min read
Read more
বর্তমান নাস্তিক- ইসলাম বিদ্বেষীদের একটি প্রশ্ন যে, স্রষ্টা যদি থেকেই থাকেন তবে তিনি কেন মানুষকে এতো দুঃখ,কষ্ট ও বিপদ দেন ? স্রষ্টা যদি থাকতেন তবে তার সৃষ্টিকে সাহায্য করতেন! এ ভাবে বিপদের মধ্যে তাকে রাখতেন না।  জবাব :-  এই প্রশ্নের উত্তর স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা নিজেই কুরআনে দিয়েছেন।  وَلَنَبْلُوَنَّكُمْ بِشَيْءٍ مِنَ الْخَوْفِ وَالْجُوعِ وَنَقْصٍ مِنَ الْأَمْوَالِ وَالْأَنْفُسِ وَالثَّمَرَاتِ ۗ وَبَشِّرِ الصَّابِرِينَ  এবং অবশ্যই আমি তোমাদিগকে পরীক্ষা করব কিছুটা ভয়, ক্ষুধা, মাল ও জানের ক্ষতি ও ফল....
13 Min read
Read more
নাস্তিকদের একটি কমন প্রশ্ন যে, স্রষ্টা যদি সত্যি থেকে থাকেন তবে তিনি কেন মানুষকে তার পাপের শাস্তি পাপ করার সাথে-সাথে দিচ্ছেন না? তিনি কেন মানুষকে আরো পাপ করতে সময় দিচ্ছেন? জবাব :- وَلَوْ يُؤَاخِذُ اللَّهُ النَّاسَ بِظُلْمِهِمْ مَا تَرَكَ عَلَيْهَا مِنْ دَابَّةٍ وَلَٰكِنْ يُؤَخِّرُهُمْ إِلَىٰ أَجَلٍ مُسَمًّى ۖ فَإِذَا جَاءَ أَجَلُهُمْ لَا يَسْتَأْخِرُونَ سَاعَةً ۖ وَلَا يَسْتَقْدِمُونَ যদি আল্লাহ লোকদেরকে তাদের অন্যায় কাজের কারণে পাকড়াও করতেন, তবে ভুপৃষ্ঠে চলমান কোন কিছুকেই ছাড়তেন না। কিন্তু ত....
19 Min read
Read more
নাস্তিক সহ আজ-কাল কিছু বিভ্রান্ত মুসলিমও মাঝে-মাঝে প্রশ্ন তোলে আমাদের ইবাদতে আল্লাহর কী উপকার হয় আল্লাহর কী লাভ এতে ?  জবাব :- আমাদের ইবাদতের কারণে আল্লাহ তায়ালার কখনো ক্ষতি বা লাভ হয় না। আমরা আল্লাহর ইবাদত করি বা না করি তাতে আল্লাহর কিছুই যায়-আসে না৷  এটা আল্লাহ কোরআনে পরিষ্কার করে দিয়েছেন- اللَّهُ الصَّمَدُ আল্লাহ অমুখাপেক্ষী, (সূরাঃ আল ইখলাস, আয়াতঃ ২) Fussilat 41:46 مَّنْ عَمِلَ صَٰلِحًا فَلِنَفْسِهِۦۖ وَمَنْ أَسَآءَ فَعَلَيْهَاۗ وَمَا رَبُّكَ بِظَلَّٰمٍ لِّلْعَبِيدِ  যে সৎকর্ম করে সে তার ন....
7 Min read
Read more
নাস্তিকসহ বর্তমান কিছু মুসলিমও আছে যাদের ইসলাম নিয়ে জ্ঞান নেই তারাও বলে থাকে যে, আদম (আঃ) যদি জান্নাতের ঐ ফল না খেতেন তবে আমরা জান্নাতে থাকতাম। উনার একটা ভুলের জন্য আজ আমরা পৃথিবীতে। এই কথাটা কতটুকু যুক্তিসম্মত ? ইসলাম এ ব্যাপারে কী বলে ? আমরা অনেকেই মনে করি আদম (আঃ) যদি জান্নাতের ঐ নিষিদ্ধ ফল না খেতেন তবে তিনি পৃথিবীতেও আসতেন না আর আমরাও জান্নাতে থাকতাম, আমরাও এ পৃথিবীতে আসতাম না। যদি আপনি এটা ভেবে থাকুন তবে আপনার এই ধারণাটি ভুল। জবাব :- আদম (আঃ) সৃষ্টি সম্পর্কে কিছু কুরআনের আয়াত - وَإِذْ قَال....
9 Min read
Read more
নাস্তিকসহ কিছু মডারেট মুসলিমদেরকেও বলতে শুনা যায় যে, ইসলামে গান-বাজনা কেন নিষিদ্ধ! গান-বাজনা শুনতে সমস্যা কোথায়! এই লেখাটিতে গান-বাজনার ক্ষতিকর দিক, ইসলামে গান-বাজনা হারাম হওয়ার রেফারেন্স এবং কেন গান-বাজনা হারাম তা তুলে ধরা হয়েছে।  আল-কোরআনে গান-বাজনা হারাম  ● মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, وَمِنَ النَّاسِ مَنْ يَشْتَرِي لَهْوَ الْحَدِيثِ لِيُضِلَّ عَنْ سَبِيلِ اللَّهِ بِغَيْرِ عِلْمٍ وَيَتَّخِذَهَا هُزُوًا ۚ أُولَٰئِكَ لَهُمْ عَذَابٌ مُهِينٌ একশ্রেণীর লোক আছে যারা মানুষকে আল্লাহর পথ থেকে গোমরাহ কর....
17 Min read
Read more
অসভ্য-নিকৃষ্ট নাস্তিকরা সহী বুখারীর ৬৯৮২ নাম্বার হাদিসটি দেখিয়ে প্রমাণ করতে চায় যে, মহানবী (ﷺ) নাকি পাহাড় থেকে লাফ দিয়ে আত্মাহত্যা করতে চেয়েছিলেন ?  জবাব :-  আসুন আমরা এই হাদিসটি আগে দেখে নিই ঠিক কী বলা হয়েছে সেখানে  -  حَدَّثَنَا يَحْيَى بْنُ بُكَيْرٍ، حَدَّثَنَا اللَّيْثُ، عَنْ عُقَيْلٍ، عَنِ ابْنِ شِهَابٍ،‏.‏ وَحَدَّثَنِي عَبْدُ اللَّهِ بْنُ مُحَمَّدٍ، حَدَّثَنَا عَبْدُ الرَّزَّاقِ، حَدَّثَنَا مَعْمَرٌ، قَالَ الزُّهْرِيُّ فَأَخْبَرَنِي عُرْوَةُ، عَنْ عَائِشَةَ ـ رضى الله عنها ـ أَنَّهَا قَال....
19 Min read
Read more
নাস্তিকদের অভিযোগ- সমকামিতায় লিপ্ত হলে আপনার সমস্যা কী? আপনার ধর্মের সমস্যা কোথায়? সমকামিতার বিরুদ্ধে আপনি কেন কথা বলবেন? আপনার তাতে কী?  এ অভিযোগের জবাব- নাস্তিকরা সকল অনৈতিক কাজকে বৈধ বানাতে চায়। তারা সমকামিতার পক্ষে স্লোগান দিবে। সমকামিতা মানুষের জন্য কতটুকু ক্ষতিকর তা এই নির্বোধরা জানে না। একজন মানুষকে সমকামিতা ধব্বংসের দিকে নিয়ে যায়। একটি সভ্য সমাজকে ধব্বংস করে দিতে সমকামিতার মতো জঘন্য অশ্লীল কাজই যথেষ্ট। এই লেখাতে সমকামিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো। সমকামিতার ক্ষতিকর দিক ....
20 Min read
Read more
◾মহানবী মুহাম্মদ সা: তার ৬৩ বছর ৪ দিনের জীবনে মোট ১১টি বিবাহ করেন। রাসূল (সা.) এর ১১ জন স্ত্রীদের মধ্যে দশ জনই ছিলেন হয় বিধবা না হয় তালাক প্রাপ্তা। যথাক্রমে, ◾খাদিজা (রা:)।  ◾সওদা বিনতে জামআ (রা:)।  ◾আয়েশা বিনতে আবু বকর (রা:)।  ◾হাফসা বিনতে ওমর (রা:)।  ◾যয়নব বিনতে খোযায়মা (রা:)।  ◾উম্মে সালমা হিন্দ বিনতে আবু উমাইয়া (রা:)।  ◾যয়নব বিনতে জাহাশ ইবনে রিয়াব (রা:)।  ◾যুয়াইরিয়া বিনতে হারেস (রা:)।  ◾উম্মে হাবিবা বিনতে আবু সুফিয়ান (রা:)।  ◾সাফিয়া বিনতে হুয়াই (রা:)।  ◾মায়মুনা বিনতে হারেস (রা:)।  ◾খাদিজা (....
20 Min read
Read more
1 2