কুরআনে বলা হয়েছে, গর্ভে কী আছে তা আল্লাহ ছাড়া কেউ জানে না। তাহলে ডাক্তাররা কীভাবে বলে দিচ্ছে?

প্রশ্ন: কুরআনে বলা হয়েছে, গর্ভে কী আছে তা আল্লাহ ছাড়া কেউ জানে না। অথচ আধুনিক যুগে বাচ্চা জন্মগ্রহণ করার পূর্বেই ডাক্তাররা বলে দিতে পারেন, গর্ভে কী আছে-ছেলে না কি মেয়ে। বাহ্যিক এই দ্বৈরথের মাঝে সমন্বয় কী?

 

জবাব: উভয়ের মাঝে কোনাে প্রকার দ্বৈরথ্য ও দ্বন্দ্ব নেই। কুরআনের আয়াতে যেখানে বলা হয়েছে, ‘গর্ভে কী আছে তা আল্লাহ ছাড়া কেউ জানে না দ্বারা উদ্দেশ্য দুটি,

(ক). আল্লাহ তাআলা তাঁর নিজ ও সত্তাগত জ্ঞানে জানেন গর্ভে কী আছে তা জানতে তার কোনাে কিছু বা কোনাে মাধ্যমের প্রয়ােজন নেই। আর ডাক্তাররা নিজেদের ও সত্তাগত জ্ঞানে তা জানেন না; বরং বিভিন্ন উপায়, মাধ্যম ও যন্ত্রের সাহায্যে জানতে চেষ্টা করেন। আর সেসব উপায়, মাধ্যম ও যন্ত্র আল্লাহ তাআলা তাদের জন্য নির্ধারণ করে দিয়েছেন এবং উদ্ভাবন আবিঙ্কারের সুযােগ করে দিয়েছেন। যেমন; বর্তমান যুগে কখন চন্দ্রগ্রহণ বা সূর্যগ্রহন হবে তা পূর্বেই বলা দেওয়া যায়। তবে কোনাে মাখলুক তা উপায়-উপকরণ ছাড়া বলতে সক্ষম নন। তারা উপায়-উপকরণের মাধ্যমে বলতে পারেন। আর আল্লাহ তাআলা সেসব উপায়-উপকরণ তাদের অধীনে করে দিয়েছেন। আল্লাহ তাআলা এভাবে অদৃশ্যের খবর কোনাে-কোনাে মাখলুককে অবহিত করার কথা কুরআনে উল্লেখ করেছেন, 

عَالِمُ الْغَيْبِ فَلَا يُظْهِرُ عَلَىٰ غَيْبِهِ أَحَدًا (٢٦)  إِلَّا مَنِ ارْتَضَىٰ مِنْ رَسُولٍ. 
তিনি অদৃশ্যের জ্ঞানী। পরন্ত তিনি অদৃশ্য বিষয় কারও কাছে প্রকাশ করেন না। তাঁর মনোনীত রসূল বা দূত ব্যতীত। [সূরা: আল জিন, আয়াত: ২৭]

আয়াতে স্পষ্টভাবে নিজ ও সত্তাগত জ্ঞানের মাধ্যমে অদৃশ্য জানার মাঝে এবং উপায়-উপকরণের মাধ্যমে জানার মাঝে পার্থক্য তুলে ধরা হয়েছে। আল্লাহর ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, তিনি তা নিজ ও সত্তাগত জ্ঞানের মাধ্যমে জানেন। আর দূত বা রাসুলের ব্যাপারে বলা হয়েছে, তিনি অনেক সময় অদৃশ্যের কথা জানতে পারেন; তবে তা নিজ বা সত্তাগত জ্ঞানের মাধ্যমে নয় বরং কোনাে উপায়-উপকরণের মাধ্যমে আল্লাহ তাঁকে তা অবহিত করেন। অতএব, প্রমাণ হয়, আল্লাহর সৃষ্ট কোনাে উপায়-উপকরণের মাধ্যমে অদৃশ্যের কোনাে কিছু জানাকে ‘অদৃশ্যের জ্ঞানী' বলা যায় না।

(খ). ‘গর্ভে কী আছে একমাত্র আল্লাহ জানেন' দ্বারা উদ্দেশ্য, গর্ভের থাকা ভ্রণের সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম সকল বিষয় একমাত্র তিনি জানেন। তা ছেলে হবে না মেয়ে, ভালাে হবে না মন্দ, সুস্থ-সবল হবে না অঙ্গহীন ও অপূর্ণাঙ্গ হবে, কতদিন বাঁচবে, কোথায় ইন্তিকাল করবে-এসব ছাড়াও অন্যান্য যাবতীয় বিষয় একমাত্র তিনি জানেন। কোনাে মাখলুকের পক্ষে এসব জানা সম্ভব নয়, তার যতই জ্ঞান থাকুক।

[ফাতওয়ায়ে আলবানী: প্রশ্ন নং ১১]

Share this:

More articles

“Science is prediction, not explanation.” — Fred Hoyle একটা ভাল তত্ত্বের বৈশিষ্ট্য হল, তা নির্ভুল prediction করবে। কিন্তু নব্য ডারউইনবাদের অজস্র ভুয়া prediction থাকা সত্ত্বেও কিছু লোক ফ্যাক্ট ফ্যাক্ট বলে চিৎকার করে থাকে। বলতে পারেন, ভাই, প্রমাণ দিতে পারবেন? অবশ্যই। Disproven NeoDarwinian paradigms: #1 the Weissman barrier #2 mutations সর্বদা random হবে #3 the central dogma #4 the tree of life পরিলক্ষিত হবে #5 ফেনোটাইপ শুধু জিন কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত #6 synonymous mutations নিরপেক্ষ হয়। #7 codons পক্....
5 Min read
Read more
    Fun – মাছ থেকে মানুষের বিবর্তন সকল বিষয়ে নোবেল-বিজয়ী’সহ গ্যালিলিও-নিউটন-আইনস্টাইনের মতো বিখ্যাত বিজ্ঞানীদের কেউই কোনো ধর্মবিদ্বেষী ছিলেন না, এখনো নেই। গ্যালিলিও ও নিউটন বরং আস্তিক ছিলেন। আর আইনস্টাইন অন্ততঃ স্বঘোষিত নাস্তিক ছিলেন না। এদিকে তিনজন বিজ্ঞানী’সহ যে’কজন মুসলিম নামধারী নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন তাঁদের সকলেই ইসলামে বিশ্বাসী।কারন ইসলামের সাথে বিজ্ঞানের কোন বিরোধ তারা পান নি, শুধু বিবর্তনবাদ ছাড়া। ভাবুন তো, বিজ্ঞানের সাথে কোন বিরোধ না থাকা সত্বেও বিবর্তনবাদ একা কেন ইসলামের সাথে শত্রুতা ....
2 Min read
Read more
নাস্তিকসহ কিছু মডারেট মুসলিমদেরকেও বলতে শুনা যায় যে, ইসলামে গান-বাজনা কেন নিষিদ্ধ! গান-বাজনা শুনতে সমস্যা কোথায়! এই লেখাটিতে গান-বাজনার ক্ষতিকর দিক, ইসলামে গান-বাজনা হারাম হওয়ার রেফারেন্স এবং কেন গান-বাজনা হারাম তা তুলে ধরা হয়েছে।  আল-কোরআনে গান-বাজনা হারাম  ● মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, وَمِنَ النَّاسِ مَنْ يَشْتَرِي لَهْوَ الْحَدِيثِ لِيُضِلَّ عَنْ سَبِيلِ اللَّهِ بِغَيْرِ عِلْمٍ وَيَتَّخِذَهَا هُزُوًا ۚ أُولَٰئِكَ لَهُمْ عَذَابٌ مُهِينٌ একশ্রেণীর লোক আছে যারা মানুষকে আল্লাহর পথ থেকে গোমরাহ কর....
17 Min read
Read more
অজ্ঞতা : ইসলামে তালাকের অধিকার শুধু পুরুষদের দেয়া হয়েছে। নারীকে তালাক দেয়ার অধিকার দেয়া হয়নি।নারীর ইচ্ছা অনিচ্ছার কোন মূল্য নাই এই ধর্মে। অজ্ঞতার জবাব: ইসলামে নারীরা ও তালাক দিতে পারে: তালাক শব্দের অর্থ হচ্ছে বিয়ে বিচ্ছেদ। আর ইসলামি শরিয়তে তালাক নিকৃষ্ট কাজ বলে সাব্যস্ত করা হয়েছে। রাসূল সা: এক হাদিসে বলেন , “তালাক হচ্ছে সবচেয়ে নিকৃষ্ট হালাল কাজ।” আর তালাক দেওয়ার ক্ষমতা শর্ত সাপেক্ষে নারী পুরুষ উভয়কে দেওয়া হয়েছে।  নারী পুরুষের তালাক দেওয়ার ক্ষমতার মাঝে পার্থক্যের পেছনে অনেক হিকমত আছে। জ্ঞানী নার....
5 Min read
Read more
◾মহানবী মুহাম্মদ সা: তার ৬৩ বছর ৪ দিনের জীবনে মোট ১১টি বিবাহ করেন। রাসূল (সা.) এর ১১ জন স্ত্রীদের মধ্যে দশ জনই ছিলেন হয় বিধবা না হয় তালাক প্রাপ্তা। যথাক্রমে, ◾খাদিজা (রা:)। ◾সওদা বিনতে জামআ (রা:)। ◾আয়েশা বিনতে আবু বকর (রা:)। ◾হাফসা বিনতে ওমর (রা:)। ◾যয়নব বিনতে খোযায়মা (রা:)। ◾উম্মে সালমা হিন্দ বিনতে আবু উমাইয়া (রা:)। ◾যয়নব বিনতে জাহাশ ইবনে রিয়াব (রা:)। ◾যুয়াইরিয়া বিনতে হারেস (রা:)। ◾উম্মে হাবিবা বিনতে আবু সুফিয়ান (রা:)। ◾সাফিয়া বিনতে হুয়াই (রা:)। ◾মায়মুনা বিনতে হারেস (রা:)।  ◾খাদিজা (রা:) - মদি....
20 Min read
Read more
বিবর্তন নিয়ে পোস্ট দিলেই কিছু ডারউইনের মুরিদ হাজির হয়ে 'ফ্যাক্ট ফ্যাক্ট' বলে চিৎকার করা শুরু করে। ধরে নিলাম, বিবর্তন সত্য। কিন্তু কোন বিবর্তন? ডারউইনবাদ ছাড়াও একাডেমিতে অন্যান্য মডেল আছে। যেমন- a) Evolution by Natural Genetic Engineering (J. Shapiro) b) evolution by self-organization (Kauffman, Depew) c) facilitated variation (Gerchart) d) neo-Lamarckism (Jablonka, Pigliucci) e) symbyogenesis (Margulis) উপরের সবগুলোই ভিন্ন ভিন্ন প্রক্রিয়া ও ভবিষ্যৎ বাণী বর্ণনা করে এবং কোনটাই একাডেমী থেকে বাতিল ....
2 Min read
Read more