বৈজ্ঞানিক নিবন্ধের ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর কি?

লিখেছেন- পদার্থবিজ্ঞানী প্রফেসর সালেহ হাসান নাকিব

ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর নিয়ে অনেক কথাবার্তা শোনা যায়। তবে বিভিন্ন আলাপ থেকে বুঝতে পারি এই scientometric index-টি সম্পর্কে অনেকেরই ধারণা পরিষ্কার নয়।
ধরা যাক, X একটি পিয়ার রিভিউড এবং ইন্ডেক্সড জার্নাল। পিয়ার রিভিউ এবং ইন্ডেক্সিং-এর কথা এ কারণে আসছে যে, এ দুটো ঠিক না থাকলে ইম্প্যাক্ট ফ্যাক্টরের তাৎপর্য থাকে না।
ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর কী ভাবে ক্যাল্কুলেইট করতে হয়? ধরা যাক, X জার্নালটিতে ২০১৭ এবং ২০১৮ সালে প্রকাশিত প্রবন্ধগুলো ২০১৯ সালে ৫০০ বার সাইটেড হয়েছে এবং ২০১৭ এবং ২০১৮ সালে X জার্নালে মোট প্রকাশিত প্রবন্ধের সংখ্যা ২০০। সেক্ষেত্রে ২০১৯ সালে এই জার্নালটির ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর গিয়ে দাঁড়াবে ৫০০/২০০ = ২.৫। এই হিসেব পূর্ববর্তী দু'বছরে প্রকাশিত মোট প্রবন্ধ সংখ্যার সাপেক্ষে একটি গড়। হিসাবটি ভালো করে বুঝে নিতে হবে। প্রতিটি ডিসিপ্লিনের আলাদা বৈশিষ্ট্য আছে, তাই ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর থেকে কোন সিদ্ধান্তে আসতে হলে এই বিষয়ে সজাগ থাকা বাঞ্ছনীয়। ফিজিক্যাল সায়েন্সের একটি জার্নালের ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টরের সাথে বায়োলজিক্যাল সায়েন্সের একটি জার্নালের ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টরের তুলনা খুব কার্যকরী কিছু নয়।
ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর একটি গুরুত্বপূর্ণ ইন্ডিকেটর। তবে এর ভেতর অনেক কিন্তু আছে। প্রথম কিন্তু হচ্ছে, ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর একটি জার্নালের কোয়ালিটি সম্পর্কে ধারণা দেয়। জার্নালে প্রকাশিত একটি পার্টিকুলার আর্টিক্যাল সম্পর্কে ধারণা ইম্প্যাক্ট ফ্যাক্টর থেকে পাওয়া যায় না। হাই ইম্প্যাক্ট ফ্যাক্টর জার্নালে এমন অনেক প্রবন্ধ প্রকাশিত হয় যেগুলো কারো কোন কাজে লাগে না, তেমন ভাবে সাইটেড হয় না। আবার এমন অনেক উদাহরণ দেওয়া যাবে যেখানে জার্নালের ইম্প্যাক্ট ফ্যাক্টর হয়ত তেমন বেশি কিছু না, কিন্তু সেই জার্নালে প্রকাশিত কোন একটি বিশেষ আর্টিক্যাল শত শতবার সাইটেড হয়েছে। এই আর্টিক্যালটি একটি দারুণ কাজ যদিও ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর বিচারে জার্নালটি তেমন ভালো কিছু নয়। তাহলে কী দাঁড়াচ্ছে? কোন একটি পার্টিকুলার কাজ ভালো না মন্দ তা জার্নালের ইম্প্যাক্ট ফ্যাক্টর থেকে সরাসরি বলা যাবে না।
আরো ব্যাপার আছে। আগেই বলেছি, ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর একটা গড় পরিমাপ। জার্নালে প্রকাশিত প্রবন্ধ এবং তাদের সাইটেশনের যে ফ্রিকুয়েন্সি ডিস্ট্রিবিউশন তা অত্যন্ত skewed। উদাহরণ দিই, জার্নাল হিসেবে নেচার এবং সায়েন্সের খ্যাতি বিশ্বজোড়া। ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর ৪০-এর আশেপাশে। তবে এই দুই জার্নালে পূর্ববর্তী দু'বছরে প্রকাশিত বেশির ভাগ আর্টিক্যালের সাইটেশন ১০ অথবা তার থেকে কম। তাই যদি হয়, তাহলে ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর এত বেশি হল কী করে? ঐ যে বলছিলাম skewed frequency distribution-এর কথা। এই দুই জার্নালে সব সময়ই এমন কিছু প্রবন্ধ প্রকাশিত হয় যা দু'বছরে শত শত সাইটেশন অর্জন করে। এই ধরণের প্রবন্ধের সংখ্যা খুব কম হলেও তারা ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর অনেক বাড়িয়ে দেয়। ব্যাপারটা অনেকটা এই রকম, বান্ডিলে বেশির ভাগ নোট পাঁচ টাকার হলেও, বান্ডিলে যদি অল্প কিছু হাজার টাকার নোট থাকে তাহলে নোট প্রতি গড়পড়তা ভ্যালু অনেক বেড়ে যায়।
কী বোঝা গেল? ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর হচ্ছে একটি জার্নালের গুণগত মানের একটি পরিমাপ। ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর থেকে একটি বিশেষ প্রবন্ধের মান সম্পর্কে ভালো জানা যায় না। তবে এটাও সত্য, মোটা দাগে একটি জার্নালের ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর যত বেশি, ভালো প্রবন্ধ সেই জার্নালে খুঁজে পাওয়ার সম্ভাবনাও তত বেশি। এখানে সম্ভাবনা শব্দটি গুরুত্বপূর্ণ।
জার্নালের মান বুঝতে ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর কতটা কার্যকরী? অনেকটাই। প্রতিটি scientometric index-এর দুর্বলতা আছে। ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টরেরও। তারপরেও যে বোঝে, তার জন্য ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর একটি ভালো ইনডিকেটর।
যারা গবেষক তারা হাই ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর জার্নাল টার্গেট করেন, এটা স্বাভাবিক। যতদূর সম্ভব হাই মপ্যাক্ট ফ্যাক্টর এবং টার্গেট অডিয়েন্স ঠিক করে পেপার সাবমিট করতে হয়। টার্গেট অডিয়েন্স একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। এ ব্যাপারে সময় পেলে লেখার ইচ্ছা আছে।
সুবিধা অসুবিধা বুঝে ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর নিয়ে কথাবার্তা হতে অসুবিধা নেই। তবে অনেকে আজকাল ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টরকে একরকম তুড়ি দিয়ে উড়িয়ে দিতে চাচ্ছে। এই অ্যাটিচুডের কারণ বোঝা মুশকিল। সমস্যাটা বোধহয় বিজ্ঞান বা scientometric index হিসেবে ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর নয়, অন্য কোথাও।

 

Share this:

More articles

 এক. মুসলিম মাত্রই বিশ্বাস করেন যে কুরআন আল্লাহ প্রেরিত গ্রন্থ। তারা এও বিশ্বাস করেন, কুরআনে যেহেতু আল্লাহপাক বলেছেন তিনি কুরআনকে সংরক্ষণ করবেন, কাজেই কুরআন অবশ্যই অবিকৃত ও অপরিবর্তিত আছে  এবং থাকবে।  কিন্তু কথা হলো,  এই যে কুরআনে বলা আছে যে, কুরআন আল্লাহপাক সংরক্ষণ করবেন, এই কথাটিই যে অবিকৃত ও অপরিবর্তিত আছে, তার প্রমাণ কী? পূর্ববর্তী কোন আসমানী কিতাবই তো অবিকৃত ও অপরিবর্তিত নেই।  বলা হতে পারে,  উসমান(রা.) যে কুরআনের কপি তৈরি করেছিলেন, সেটা তো অদ্যাবধি সংরক্ষিত আছে।  সেই কপির সাথে বর্তমানে আমা....
9 Min read
Read more
কাব ইবনু আশরাফের দূর্গের বর্তমান অবস্থা । সুত্র: Islamiclandmarks.com কাব ইবনু আশরাফের হত্যার ঘটনা বিশ্লেষণের পূর্বে তৎকালীন মাদীনার রাষ্ট্র ব্যাবস্থাপনা ও রাষ্ট্র ব্যাবস্থাপনা প্রতিষ্ঠার ইতিহাস ভালো করে জানা দরকার । ইয়াসরীব বা মাদীনার অভিবাসনের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস: তৎকালীন মাদীনার পরিচিত নাম ছিল ইয়াসরীব ।মক্কা থেকে ২০৯ মাইল বা ৩৩৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ইয়াসরিব । শহরটি ভৌগোলিকভাবে ছিল অত্যন্ত সুরক্ষিত । এর দক্ষিণ দিকে ঘনবসতি এবং খেজুর বাগান দিয়ে এমন ভাবে পরিবেষ্টিত ছিল ছিল যে অভ্যন্তরীণ সহযোগ....
22 Min read
Read more
Contents ভুল কোথায়?. 1 সূর্য প্রদীপ, চাঁদ নয়. 2 তাফসীর ও আলোর শ্রেণিভেদ. 2 নূর শব্দের অর্থ. 3 সম্ভাব্য কুযুক্তি... 3 মহান আল্লাহ বলেন, وَّ جَعَلَ الۡقَمَرَ فِیۡہِنَّ نُوۡرًا وَّ جَعَلَ الشَّمۡسَ سِرَاجًا “আর চন্দ্রকে স্থাপন করেছেন আলোক রূপে আর সূর্যকে প্রদীপরূপে”। (কুরআন, ৭১ঃ১৬) উপরের আয়াত নিয়ে অভিযোগ হল, ‘নূর’ শব্দের অনুবাদ ‘প্রতিফলিত আলো’ করা নাকি ভুল! তো আমি বেশ কিছু ধাপে জবাব দিব। ভুল কোথায়? শুধু উপর্যুক্ত আয়াতের উপর ভিত্তি করে: ‘আত-তাহরীর ওয়াত-তানওয়ীর’ কিতাবে ‘নূর’ শব্দ নিয়ে বলা আছে, “সূর....
11 Min read
Read more
বর্তমান নাস্তিক- ইসলাম বিদ্বেষীদের একটি প্রশ্ন যে, স্রষ্টা যদি থেকেই থাকেন তবে তিনি কেন মানুষকে এতো দুঃখ, কষ্ট ও বিপদ দেন? স্রষ্টা যদি থাকতেন তবে তার সৃষ্টিকে সাহায্য করতেন! এ ভাবে বিপদের মধ্যে তাকে রাখতেন না? জবাব :-  এই প্রশ্নের উত্তর স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা নিজেই কুরআনে দিয়েছেন।  وَلَنَبْلُوَنَّكُمْ بِشَيْءٍ مِنَ الْخَوْفِ وَالْجُوعِ وَنَقْصٍ مِنَ الْأَمْوَالِ وَالْأَنْفُسِ وَالثَّمَرَاتِ ۗ وَبَشِّرِ الصَّابِرِينَ  এবং অবশ্যই আমি তোমাদিগকে পরীক্ষা করব কিছুটা ভয়, ক্ষুধা, মাল ও জানের ক্ষতি ও ফল-....
13 Min read
Read more
অজ্ঞতা : ইসলামে তালাকের অধিকার শুধু পুরুষদের দেয়া হয়েছে। নারীকে তালাক দেয়ার অধিকার দেয়া হয়নি।নারীর ইচ্ছা অনিচ্ছার কোন মূল্য নাই এই ধর্মে। অজ্ঞতার জবাব: ইসলামে নারীরা ও তালাক দিতে পারে: তালাক শব্দের অর্থ হচ্ছে বিয়ে বিচ্ছেদ। আর ইসলামি শরিয়তে তালাক নিকৃষ্ট কাজ বলে সাব্যস্ত করা হয়েছে। রাসূল সা: এক হাদিসে বলেন , “তালাক হচ্ছে সবচেয়ে নিকৃষ্ট হালাল কাজ।” [১] ইসলামে তালাক দেওয়ার ক্ষমতা শর্ত সাপেক্ষে নারী পুরুষ উভয়কে দেওয়া হয়েছে। তবে নারী ও পুরুষের তালাকের মধ্য কিছুটা পার্থক্য আছে । নারী পুরুষের তালাক দে....
5 Min read
Read more
জিহাদ বলতে অমুসলিমরা সাধারণত "যুদ্ধ" বুঝে থাকে। খ্রিস্টান মিশনারীরা যখনই বিতর্কে হেরে যায়, তখনই আলোচনা ঘুরাতে ইসলামের জিহাদ নিয়ে মিথ্যাচার করা শুরু করে। আজ আমরা বাইবেলের আলোকে "যুদ্ধ" সম্পর্কে জানবো। যুদ্ধ নিয়ে বাইবেলে কী কিছু বলা আছে? বাইবেলের কিছু যুদ্ধের চিত্র আপনাদের সামনে তুলে ধরছি। ঈশ্বর নিজেকে, ঈশ্বর প্রমান করতে ১ লক্ষ ২৭ হাজার মানুষকে হত্যা করে: 23. রাজা বিন্হদদের রাজকর্মচারীরা তাঁকে বললেন, “ইস্রায়েলের দেবতারা আসলে পর্বতের দেবতা| আর আমরা পর্বতে গিয়ে যুদ্ধ করেছি তাই ইস্রায়েলের লোকরা জ....
17 Min read
Read more